7-5 7-5 7-5

আইন,  বিচার  ও  সংসদ  বিষয়ক  মন্ত্রণালয়ের  সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান  জাতীয়  আইনগত  সহায়তা  সংস্থা (এনএলএএসও)  এবং  কমিউনিটি  লিগ্যাল  সার্ভিসেস (সিএলএস)  কর্তৃক  গত  ২৮  এপ্রিল   ২০১৬   যৌথভাবে এক   বর্ণাঢ্য   শোভাযাত্রার   আয়োজন   করা   হয়। জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০১৬ উদযাপন উপলক্ষে শোভাযাত্রাটি আয়োজিত হয়। উল্লেখ্য, সিএলএস হলো ডিএফআইডি-এর সেফটি এন্ড জাস্টিস প্রোগ্রামের আওতায় অর্থায়িত একটি প্রকল্প। সারাদেশে সরকারের যেসব আইনি সহায়তা ও সেবা বিনামূল্যে পাওয়া যায় সেগুলো সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি করাই ছিল এই শোভাযাত্রা আয়োজনের উদ্দেশ্য। দেশের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত সেবাগ্রহীতাদের চাহিদা পূরণের জন্য সুনির্দিষ্ট কিছু প্রকল্পের আওতায় বিনামূল্যের এসব আইনি সেবার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারী কর্মকর্তা এবং সিএলএস এর সহযোগী সংগঠনসহ প্রায় ২৭৫ জন অংশগ্রহণকারী শোভাযাত্রায় যোগদান করেন। আইনি সহায়তা বিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য সংবলিত নানা রঙের ফেস্টুন ও ব্যানার শোভাযাত্রাকে বর্ণময় করে তোলে। এই শোভাযাত্রায় বহু সুসজ্জ্বিত ঘোড়ার গাড়িও ব্যবহার করা হয়, যার ফলে সমগ্র অনুষ্ঠানটি আরও উৎসবমুখর হয়ে উঠেছিল।

শোভাযাত্রার আগে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০১৬ এর উদ্বোধন ঘোষণা করা হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি বলেন, তাঁর সরকার দেশের তৃণমূল পর্যায়ে আইনি সেবা নিশ্চিত করার পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। প্রতি বছর ২৮ এপ্রিল এই দিবসটি উদযাপন করা হবে। জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০১৬ উদ্বোধনের সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তৃণমূল পর্যায়ে আইনি সহায়তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি বিনামূল্যের হেল্পলাইন নাম্বারও অবমুক্ত করেন। নাম্বারটি হলো ১৬৪৩০। সেবাপ্রার্থীরা যে কোন সময় এই হেল্পলাইন নাম্বারে ফোন করে বিনামূল্যের আইনি সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে বিচার ব্যবস্থার সাথে সম্পৃক্ত ব্যক্তিবর্গকে সাথে নিয়ে একই স্থানে একটি ‘লিগ্যাল এইড মেলা’রও আয়োজন করা হয়। সিএলএস এর কিছু সহযোগী সংগঠনও সক্রিয়ভাবে এই মেলায় অংশগ্রহণ করে। এছাড়া দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ঐদিন সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের জেলা লিগ্যাল এইড কমিটি (ডিএলএসি)কে সাথে নিয়ে সিএলএস এর সকল সহযোগী সংগঠন কর্তৃক নিজেদের এলাকায় পৃথক শোভাযাত্রা আয়োজিত হয়। জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০১৬ এর শ্লোগান ছিল ‘গরিব দুঃখীর বিচার পাওয়ার অধিকার বর্তমান সরকারের অঙ্গীকার’। সিএলএস এর সহযোগী সংগঠন নাগরিক উদ্যোগ (এনইউ) এই শোভাযাত্রা আয়োজনে সহযোগিতা প্রদান করে। এই আয়োজনকে সফল করার জন্য নাগরিক উদ্যোগের কঠোর পরিশ্রম ও অব্যাহত প্রচেষ্টা ছিল সত্যিই প্রশংসনীয়।

এখানে উল্লেখ করা জরুরি যে, দেশের অনগ্রসর ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর কাছে আইনি সেবাকে সহজলভ্য করতে ২০০০ সালের ২৬ জানুয়ারি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক লিগ্যাল এইড সার্ভিসেস এ্যাক্ট ২০০০ (LASA) অনুমোদিত হয়। এরপর ২৮ এপ্রিল ২০০০ একটি গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে আইনটিকে কার্যকর করা হয়। এই আইনের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন সেবা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য জাতীয় আইনগত সহায়তা সংস্থা (এনএলএএসও) নামে একটি সংবিধিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানও সৃষ্টি করা হয়। এরপর ২০১৩ সালের ২৯ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার বৈঠকে সরকার ২৮ এপ্রিল দিনটিকে প্রতিবছর ‘জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। সারাদেশে যেসব সরকারি আইনি সেবা বিনামূল্যে পাওয়া যায় সেগুলো সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্যই দিবসটি প্রবর্তন করা হয়েছে।

7-5 7-5 7-5